২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, বুধবার
--বিজ্ঞাপন-- Bangla Cars

মায়ের চিকিৎসার জন্য কিডনি বেঁচতে চায় মেহেদী, একটা চাকরির জন্য দারোয়ানের পা ধরে

নিজস্ব প্রতিবেদক
spot_img

মায়ের চিকিৎসার জন্য কিডনি বেঁচতে চায় মেহেদী, একটা চাকরির জন্য দারোয়ানের পা ধরে

শেরপুরের ছেলে মেহেদী হাসান হিমেল।‌ মাদ্রাসায় আলিম পর্যন্ত পড়ে ইংরেজি সাহিত্যে অনার্সে ভর্তি হন। অনার্স শেষ বর্ষে এসে পড়ে যান চরম আর্থিক সংকটে। তার মা করোনার সময় স্ট্রোক করে প্যারালাইজড। এখন শয্যাশায়ী। প্রতি মাসে তার মায়ের ওষুধ চিকিৎসসহ চার হাজার টাকা দরকার। কিন্তু মেহেদী তো লেখাপড়াই শেষ করতে পারেনি। তার ওপর তার বাবা চার বছর আগে আরেকটি বিয়ে করেন। মাকে তালাক দিয়ে চলে যান। ছেলেকে নিয়ে সাগরে পড়েন মেহেদীর মা।

গার্মেন্টসে কাজ নেন। প্যারালাইজড হবার পর গার্মেন্টসেও যেতে পারছেন না।

এমন‌ও দিন যাচ্ছে দুদিনেও তাদের পেটে ভাত দানাপানি পড়ে না।

মেহেদী তার মায়ের এই কষ্ট সহ্য করতে পারছে না। মায়ের কানের দুল বিক্রি করে কিছুদিন ওষুধের খরচ চালায়। কিন্তু এরকম কী!

টাকার অভাবে সংসার চলে না। মায়ের চিকিৎসা বন্ধ। বাধ্য হয়ে ঢাকায় এসে কত কোম্পানিতে একটা ছোট চাকরির জন্য ধর্না দেয়। কাজ হয়নি। সবাই দূর দূর করে তাড়িয়ে দেয়।

শেষ পর্যন্ত নিজের একটা কিডনি বিক্রি করে সেই টাকা দিয়ে মায়ের চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে চায়।

গাজীপুর, টঙ্গী, উত্তরায় দেয়ালে দেয়ালে টানিয়ে দেয়, আমি কিডনি বিক্রি করতে চাই।

মেহেদী বলেন, আমি একটা চাকরির জন্য দারোয়ানের পায়ে জড়িয়ে ধরি। কিন্তু তাদের মন গলেনি।

মায়ের চিকিৎসার জন্য টাকা সংগ্রহ করতে গিয়ে অনার্স শেষ করতে পারেনি। আমি আমার মায়ের চিকিৎসার জন্য সবার সহযোগিতা চাই। বললেন মেহেদী।

সর্বশেষ নিউজ