৩১ জানুয়ারী ২০২৩, মঙ্গলবার
--বিজ্ঞাপন-- Nagad

সেলিম আল দীনের প্রয়াণ দিবসে জাবিতে ৩ দিনব্যাপী নাট্যোৎসব

জাবি প্রতিনিধি
spot_img

নাট্যাচার্য সেলিম আল দীনের প্রয়াণ দিবস স্মরণে আগামী ১৪ জানুয়ারি থেকে ৩ দিন ব্যাপী নাট্যোৎসবের আয়োজন করছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়।

বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের সেমিনার কক্ষে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এই তথ্য জানান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ইস্রাফিল আহমেদ।

তিনদিন ব্যাপী এই এই নাট্যোৎসব উপলক্ষে থাকছে বর্ণিল আয়োজন করতে যাচ্ছে নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগ। প্রথমদিনে (১৪ জানুয়ারি) সকাল ১০ টায় সেলিম আল দীনের প্রতি স্মরণযাত্রার মধ্য দিয়ে এই নাট্যোৎসবের পর্দা উঠবে। বিকেল সাড়ে ৩ টায় থাকছে সেমিনার ‘শেষ নাহি যে’। এরপর সন্ধ্যা ৬ টায় নাট্যোৎসব এর উদ্বোধন করবেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. নূরুল আলম।

বিশেষ অতিথি হিসেবে থাকবেন নাট্যকার অধ্যাপক আবদুস সেলিম, দেশবরেণ্য নাট্যব্যক্তিত্ব আফজাল হোসেন।

সন্ধ্যা ৭ টায় ফাহমিদা নবীর পরিবেশনায় থাকবে সেলিম আল দীনের গান। সবশেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের সেলিম আল মুক্তমঞ্চে নাট্যপ্রযোজনা ‘স্বর্ণবোয়াল’ মঞ্চস্থ হবে।

নাট্যোৎসবের বাকি দুই দিনেও থাকছে দুটি নাট্য প্রযোজনা। দ্বিতীয় দিন ‘মাদার কারেজ এন্ড হার চিল্ডরেন’ এবং তৃতীয় দিন ‘নিমজ্জন’ মঞ্চস্থ হবে।

সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন এবারের নাট্যোৎসবের আহ্বায়ক অধ্যাপক খোরশেদ আলম।

উল্লেখ্য, নাট্যাচার্য সেলিম আল দীন ১৯৪৯ সালে ফেনীতে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৯৫ সালে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন তিনি। পরে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগ প্রতিষ্ঠা করেন। নাট্যচর্চার জন্য ঢাকা থিয়েটার প্রতিষ্ঠায়ও তার ভূমিকা ছিল।

সারাদেশে নাট্য আন্দোলনকে ছড়িয়ে দিতে ১৯৮১-৮২ সালে আরেক নাট্যযোদ্ধা নাসিরউদ্দীন ইউসুফের সঙ্গে তিনি গড়ে তোলেন ‘বাংলাদেশ গ্রাম থিয়েটার’। তার নাটকে স্থান পায় গ্রাম বাংলার চিরায়ত দুঃখ-বেদনা, সুখ-সমৃদ্ধি। বাঙালীর নিজস্ব সংস্কৃতি ও জীবনচেতনাই ছিল তার কর্মজীবনের মূল উপজীব্য। ২০০৮ সালের ১৪ জানুয়ারি ৫৯ বছর বয়সে নাট্যাচার্য সেলিম আল দীন মৃত্যুবরণ করেন।

সর্বশেষ নিউজ