১২ এপ্রিল ২০২৪, শুক্রবার

‘স্যার বলতে হবে বিধায় হিরো আলমকে জিততে দেওয়া হয়নি’

নিজস্ব প্রতিবেদক

উত্তরবঙ্গে হিরো আলম দাঁড়িয়েছিল বলেই মানুষ আগ্রহী হয়ে ভোট দিয়েছিল বলে মন্তব্য করেছেন গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি। এমপি নির্বাচিত হলে তাকে (হিরো আলম) স্যার বলতে হবে, এটা প্রশাসনের লোকেরা মানতে পারল না। তাই হিরো আলম জিতলেও তাকে জিততে দেওয়া হয়নি।

রবিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে গণতন্ত্র মঞ্চের আয়োজনে বিক্ষোভ মিছিল-পূর্ব সমাবেশে সাকি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, সরকার সদ্য অনুষ্ঠিত ছয়টি আসনের উপনির্বাচনও ন্যূনতম গ্রহণযোগ্য করতে পারেনি।

জনগণকে রাজপথে নামার আহ্বান জানিয়ে গণসংহতি আন্দোলনের এই শীর্ষ নেতা বলেন, উন্নয়ন আর স্মার্ট বাংলাদেশের চক্রান্তে বিভ্রান্ত না হয়ে রাজপথে নামুন। গণতন্ত্র ও ভোটের অধিকারের জন্য, দেশকে বাঁচানোর জন্য ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তুলুন।

উল্লেখ্য, সদ্য অনুষ্ঠিত হয়ে যাওয়া বগুড়া-৪ (নন্দীগ্রাম-কাহালু) ও বগুড়া-৬ (সদর) আসনে উপনির্বাচনে প্রার্থী ছিলেন হিরো আলম। এরমধ্যে বগুড়া-৪ আসনে ফলে হিরো আলম ৮৩৪ ভোটের ব্যবধানে মশাল প্রতীকের কাছে হেরেছেন। তবে বগুড়া-৬ আসনে তিনি ৫ হাজার ২৭৪ ভোট পেয়ে জামানত হারিয়েছেন।

পরে হিরো আলম দুই আসনেই উপনির্বাচনে ভোট গণনায় অনিয়মের অভিযোগ এনে ফল প্রত্যাখ্যান করেন। তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘কিছু কিছু শিক্ষিত লোক আমাকে মেনে নিতে চান না। তারা ভাবেন, আমি পাশ করলে দেশের সম্মান যাবে, অনেকের সম্মান যাবে। অফিসারদের লজ্জা যে হিরো আলমকে স্যার বলে সম্বোধন করতে হবে। সে জন্যই আমাকে জিততে দেওয়া হয়নি।’

সর্বশেষ নিউজ