১৭ এপ্রিল ২০২৪, বুধবার

সাতক্ষীরায় গম চাষে আগ্রহ হারাচ্ছে চাষীরা

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

বৈরী আবহাওয়া, লাভ কম এবং ভালো মানের বীজের অভাবে সাতক্ষীরার তালা উপজেলার চাষীরা গম চাষ করে ঝুঁকি নিতে চাচ্ছেন না। গমের পরিবর্তে অন্য ফসল চাষে ঝুঁকছেন চাষিরা। ফলে এই উপজেলায় গম চাষের লক্ষ্যমাত্রা দিন দিন হ্রাস পাচ্ছে।

উপজেলা কৃষি অফিসের তথ্য মতে, গত বছর ২০২২ সালে তালা উপজলায় গম চাষের লক্ষ্য মাত্রা নির্ধারণ ছিল ১৭৫ হেক্টর জমিতে। কিন্তু সেই লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে ব্যর্থ হয়ে আবাদ হয় ১৫৫ হেক্টর জমিতে। সে কারনে এ বছর লক্ষ্য মাত্রা নির্ধারণ করা হয়ছে ১৫৫ হেক্টর জমিতে। তবে লক্ষ্যমাত্রা অর্জন নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। তালা উপজেলায় সাধারণত কাঞ্চন, অতবর, অগ্রণী, প্রতিভা, সৌরভ জাতের গম চাষ করা হয়।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, তালা উপজেলায় গম চাষ করতে যে পরিমাণ খরচ হয় সে অনুযায়ী বাজারে গমের দাম না পাওয়ার কারণে দিন দিন গম চাষে আগ্রহ হারিয়ে ফেলছেন চাষীরা। আগে চাষীরা যে সব জমিতে গমের চাষ করতেন এখন এসব জমিতে গমের পরিবর্তে অন্য ফসলের চাষ করছেন। ২০২২ -২০২৩ সালে উপজেলার বিভিন্ন অঞ্চলে গমে চাষ ক্রমাগত ভাবে কমে যাচ্ছে। মাটি আবহাওয়া উপযোগী থাকায় ও উৎপাদন বৃদ্ধি হলেও গম চাষের প্রতি চাষীদের সঠিক প্রশিক্ষণের উপর দায়িত্বহীনতার কারণে এমন অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বলে প্রতীয়মান হয়েছে।

চাষীরা মনে করেন, গম চাষের চেয়ে অন্য ফসল তুলনামূলক ভাবে অনেক লাভ হয়। সে জন্য গমের পরিবর্তে অন্য ফসল চাষ করছে। ফলে উপজেলার মধ্যে খলিলনগর হাজরাকাটি, দোহার, মাগুরা আগোলঝাড়া গ্রাম সহ অন্য সকল ইউনিয়নগুলোতে অতীতে যে পরিমাণ গম চাষের দৃশ্য দেখা যেত তার বিন্দু পরিমান প্রতীয়মান হয়নি। তাই অধিকাংশ চাষীদের আগ্রহীনতা ও সঠিক সহযোগিতা না পাওয়ার কারণে এমতবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

সফল চাষী মো. হাবিবুর রহমান জানান, আমি সরকারি সহযোগিতা ১৫ শতক জমিতে গম চাষ করেছি। আগামী বছরে আমি সরকারি সহযোগিতা পেলে আরো বেশি জমিতে গমের চাষ করবো।

নাম প্রকাশ অনিচ্ছুক একাধিক কৃষক বলেন,সরকারি ভাবে আমার সহযোগিতা পেলে ধান চাষের পাশাপাশি গম চাষ করবো। চাষীদের আগ্রহ ও ফলন বৃদ্ধি করতে যেমন বিভিন্ন প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা রয়েছে একি ভাবে গম চাষের উপর প্রশিক্ষণ প্রদান করলে সকল কৃষকরা গম চাষের প্রতি আগ্রহী হবে।

চাষীরা আরোও বলেন, অন্য ফসলের উন্নত মানের জাত ও বীজের গুনাগুণ, গুনগত মান সম্পর্কে আমরা সহজে জানতে পারি কিন্তু গমের জাত ও বীজের গুনাগুণ সম্পর্কে আমরা কিছুই জানি না। তবে সরকারি ও বেসরকারি উদ্যোগে তাদের মাঝে প্রশিক্ষণ প্রদান করে গমের চাষ পদ্ধতি ও উন্নত জাতের বীজ সম্পর্কে অবগত বৃদ্ধি করলে ভালো হবে বলে ধারণা করেন কৃষকরা।

সর্বশেষ নিউজ