২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, বুধবার
--বিজ্ঞাপন-- Bangla Cars

ফিলিপাইনে পেঁয়াজ দিয়ে পণ্য ক্রয়

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
spot_img

ফিলিপাইনের একটি খুচরা দোকান ‘কমিউনিটি প্যান্ট্রি’ বা ফুড ব্যাঙ্ক প্রকল্পের জন্য পেঁয়াজ সংগ্রহের অংশ হিসাবে পেঁয়াজের বিনিময়ে পণ্য কেনার সুযোগ করে দিয়েছে। জাপান হোম সেন্টারের একটি শাখা গ্রাহকদের পছন্দের জিনিসের বিনিময়ে পেঁয়াজ গ্রহণ করছে। প্রতিটি গ্রাহকের শুধুমাত্র তিনটি আইটেম কেনার সুযোগ রয়েছে।

স্টোরটি একটি সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টে বলেছে-‘ যে কোনও ধরণের এবং যে কোনও আকারের পেঁয়াজ গ্রহণযোগ্য। সমস্ত সংগৃহীত পেঁয়াজ প্যান্ট্রিতে ব্যবহার করা হবে।’

একজন গ্রাহকের বরাত দিয়ে সিনহুয়া নিউজ এজেন্সি জানিয়েছে- ‘জাপান হোম পেঁয়াজ সংগ্রহের দিকে মনোযোগ দিয়েছে। যেখানে পেঁয়াজ শুধুমাত্র একদিনের জন্য মুদ্রা হিসেবে কাজ করবে। সংগৃহিত পেঁয়াজ একটি কমিউনিটি প্যান্ট্রি প্রকল্পের জন্য ব্যবহার করা হবে।

‘কমিউনিটি প্যান্ট্রি’ প্রথম শুরু হয়েছিল ২০২১ সালের এপ্রিল মাসে COVID-19 মহামারী লকডাউনের সময়। শহরতলির রাস্তায় মিষ্টি আলু, শাকসবজি এবং টিনজাত খাবার সমন্বিত একটি ছোট বাঁশের গাড়ি হাজির হয়েছিল মানুষের কাছে খাবার পৌঁছে দেবার জন্য। গাড়িটিতে একটি কার্ডবোর্ড ঝুলতো, যাতে লেখা থাকতো ‘আপনি যা পারেন তা দিন, বিনিময়ে আপনার যা প্রয়োজন তা নিন।’ জনগণের অনুদানের দ্বারা ফিলিপাইনের রাজধানী এবং প্রদেশগুলিতে যে প্যান্ট্রি তৈরি করা হয়েছিলো তা দিয়ে দরিদ্রদের খাওয়ানো হতো।

ফিলিপাইনে পেঁয়াজের দাম এখন অনেক বেশি। ফাস্ট-ফুড রেস্তোরাঁতে হ্যামবার্গারে এখন আর পেঁয়াজের দেখা মিলছে না। সরবরাহ স্থিতিশীল করতে এবং পেঁয়াজের দাম কমাতে পেঁয়াজ চাষিদের ফলন বাড়াতে সহায়তা করার জন্য সরকার একটি কর্মসূচি পালন করছে।

ফিলিপাইনের রাষ্ট্রপতি ফার্দিনান্দ রোমুয়াল্ডেজ মার্কোস কৃষকদের কাছে পেঁয়াজের বীজ পৌঁছে দেওয়ার প্রয়োজনীয়তার উপর জোর দিয়েছেন। তিনি তার দেশে কোল্ড চেইন সুবিধার অভাবের জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন, যা পেঁয়াজের সরবরাহ এবং দামকে প্রভাবিত করছে।

২০২২ সালের তৃতীয় ত্রৈমাসিকে পেঁয়াজের উৎপাদন ২৩.৩০ মেট্রিক টন রেকর্ড করা হয়েছে। এদিকে কৃষি বিভাগের তথ্য দেখাচ্ছে যে, ২০২২ সালে পেঁয়াজের সরবরাহ এবং চাহিদা ৩১২,৮৩০ মেট্রিক টন। পরিসংখ্যান সংস্থার তথ্য অনুযায়ী বছরে মাথাপিছু পেঁয়াজের ব্যবহার ২.৩৪১ কেজি, প্রতি মাসে আনুমানিক চাহিদা ২১ হাজার মেট্রিক টন। ১৫ ডিসেম্বর ২০২২ পর্যন্ত, দেশব্যাপী হিমাগারে স্থানীয়ভাবে উত্পাদিত লাল পেঁয়াজের মোট মজুদ ২,২০৯.৪৫ মেট্রিক টন।

১০জানুয়ারী, কৃষি বিভাগ উচ্চ মূল্য এবং সরবরাহের ঘাটতি মেটাতে ২২ হাজার মেট্রিক টন পেঁয়াজ আমদানির কথা ঘোষণা করেছে।জানুয়ারী মাসে ম্যানিলার ১৩ টি বাজারের কৃষি বিভাগের দৈনিক পর্যবেক্ষণের ভিত্তিতে, প্রতি কিলোগ্রামে পেঁয়াজের খুচরা দাম ৪০০ পেসো থেকে ৫৫০ পেসোতে দাঁড়িয়েছে। গত বছর কোনো এক সময়ে, পেঁয়াজের দাম প্রতি কিলোগ্রামে ৭০০ পেসোরও বেশি ছিল।

সূত্র : gulfnews.com

সর্বশেষ নিউজ