১২ এপ্রিল ২০২৪, শুক্রবার

আ. লীগের সঙ্গে তুলনা চলে না বিএনপির

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি

আওয়ামী লীগের সঙ্গে কখনো বিএনপির তুলনা চলে না বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে দেশের উন্নয়ন হয় আর বিএনপি ক্ষমতায় এলে দেশ পিছিয়ে যায় বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

শনিবার দুপুরে গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ার সাদুল্যাপুর ইউনিয়নের ভাঙ্গারহাট তালিমপুর-তেলিহাটি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জনসভায় ভাষণে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘বিএনপি তো নিজেদের গঠনতন্ত্রও মানে না। তাদের গঠনতন্ত্রে আছে, সাজাপ্রাপ্ত আসামি দলের নেতা হতে পারে না। খালেদা জিয়া ও তারেক রহমান দুজনেই সাজাপ্রাপ্ত। তারা সেই দলের নেতা। সেই দলের সঙ্গে আওয়ামী লীগের তুলনা চলে না।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আওয়ামী লীগ বাংলাদেশের মানুষের সংগঠন। বিএনপি, জাতীয় পার্টি এরা অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে। ক্ষমতা থেকে দল তৈরি করেছিল। এরা মানুষের কল্যাণ চায় না, তারা দেশের মানুষের ভাগ্য নিয়ে সিনিমিনি খেলে। এদের সঙ্গে আওয়ামী লীগের তুলনা চলে না।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘২০০৮ সালের নির্বাচনে মাত্র ৩০টা সিট পায় বিএনপি জোট। বাকিগুলো আওয়ামী লীগ জোট পায়। তাহলে এই দুই দল এক হয় কীভাবে। বিএনপি আমলে দেশে বারবার বোমা হামলা হয়। দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হয়। ওই দলের সঙ্গে আওয়ামী লীগের তুলনা চলে না।’

তিনই বলেন, ‘পদ্মা সেতু নিয়ে অপবাদ দেওয়া হয়েছে। শেষ পর্যন্ত তারা কোনো ‍দুর্নীতির প্রমাণ পায়নি। এটা নির্মাণ করতে পেরে এই এলাকার দৃশ্যপট পাল্টে গেছে।’

প্রধানমন্ত্রী করোনাসহ নানা চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কৃষি, প্রযুক্তিসহ নানা ক্ষেত্রে সরকাররের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে বলেন, ‘জাতির পিতার লক্ষ্য ছিল কোনো পরিবার ভূমিহীন থাকবে না। আমরা সেই লক্ষপূরণ করছি। ভূমিহীনদের জমি ও ঘর করে দিচ্ছি। বাংলাদেশে একটি পরিবারও ভূমিহীন থাকবে না।’

এ সময় প্রতিত জমি উৎপাদনের আওতায় আনতে সবার প্রতি আহ্বান জানান সরকারপ্রধান।

জনসভায় যোগ দেওয়ার পর প্রধানমন্ত্রী গোপালগঞ্জে ৪৯টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করেন। তিনি কোটালীপাড়াবাসীকে বলেন, এগুলো আপনাদের উপহার হিসেবে দিয়ে যাচ্ছি।

উদ্বোধন করা প্রকল্পগুলো হল- স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর ৩১টি কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ৪টি, শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর ৩টি, কোটালীপাড়া উপজেলা পরিষদ ২টি, গোপালগঞ্জ পৌরসভা ২টি, গণপূর্ত বিভাগ ২টি, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর ২টি, কোটালীপাড়া পৌরসভা ১টি, গোপালগঞ্জ জেলা পরিষদ ১টি এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণায়ল ১টি প্রকল্প বাস্তবায়ণ করেছে।

আরও রয়েছে- কুশলী জিসি-ধারবাশাইল জিসি ভায়া মিত্রডাঙ্গা, সোনাখালী সড়কে ১৪৭০ মিটার চেইনেজে ৯৯.০০ মিটার গার্ডার ব্রিজ। কুশলী জিসি ধারাবাশাইল জিসি ভায়া মিত্রডাঙ্গা সোনাখালী সড়কে ১৬৬০০ মিটার চেইনেজে ২০.০০ মিটার আরসিসি গার্ডার ব্রিজ। সিঙ্গিপাড়া আরএইচডি-মুন্সিরচর ভায়া শেখ কামাল সড়কে ১২৭০ মিটার চেইনেজে ২০.০০ মিটার আরসিসি স্লাব ব্রিজ। কুশলীহাট জিসিসি ধারবাশাইল জিসিসি ভায়া মিত্রডাঙ্গা সোনাখালী সড়কে ৭৭৫০ মিটার চেইনেজে ৭৫.০০ মিটার আরসিসি ব্রিজ। কুশলী ইউনিয়ন কৃষক সেবা কেন্দ্র। বাঁশবাড়িয়া জিসি ঝনঝনিয়া-ঘাঘর জিসি সড়ক (চেইনেজে০০-১২৬৩৫মিটার)। বাঁশবাড়িয়া জিসি-বিশারকান্দি জিসি ভায়া করফা বাজার,তরু বাজার,কাচারিভিটা বাজার সড়ক প্রশস্ত ও শক্তিশালী করণ (চেইনেজে ০০-৯২২৫ মিটার)।

এছাড়া রয়েছে- কোটালীপাড়া উপজেলার বঙ্গলক্ষী বাজার হতে রামশীল ইউপি অফিস সড়কে ৬৮১৫ মিটার চেইনেজে ৯৯.৭০ মিটার আরসিসি ব্রিজ। উত্তরপাড়া হাটখোলা ব্রিজ হতে পারকোনা পৌরসভা বাসস্ট্যান্ড ভায়া কুঞ্জুবন সড়কে ৩৫০০ মিটার চেইনেজে ৪২.০০ মিটার আরসিসি গার্ডার ব্রিজ। ছিকুটিবাড়ী মাইকেল চেয়ারম্যানের বাড়ীর সড়কে ৫৬০ মিটার চেইনেজে ১৮.০০ মিটার আরসিসি গার্ডার ব্রিজ। রাধাগঞ্জ ইউপিসি-উত্তরপাড়া হাটখোলা-নাগরা বাজার সড়কে ০০ মিটার চেইনেজে ২৫.০০ মিটার আরসিসি গার্ডার ব্রিজ। দেবগ্রাম আশ্রায়ণ প্রকল্পের সামনে ০০ মিটার চেইনেজে ৩০.০০ মিটার আরসিসি গার্ডার ব্রিজ। রাধাগঞ্জ ইউপিসি -ডগলাস হাইস্কুল-ভাঙ্গারহাট জিসি সড়কে ১০ মিটার চেইনেজে ৩৯.০০ মিটার আরসিসি গার্ডার ব্রিজ। রাজৈর কোটালীপাড়া সড়ক হতে লুৎফর রহমান বাচ্চুর বাড়ী ছোট দিঘলিয়া জিপিএস সংযোগ সড়কে ০০ মিটার চেইনেজে ৩০ মিটার আরসিসি গার্ডার ব্রিজ। কুশলা ইউপি হতে টুপুরিয়া আরএ্যান্ডএইচ সড়কে ২৪৩০ মিটার চেইনেজে ৩৬.০০ মিটার আরসিসি গার্ডার ব্রিজ। টুপুরিয়া আরএ্যান্ড এইচ হতে কুশলা ইউপিসি ভায়া জামুলা সড়কে ০৮ মিটার চেইনেজে ৩০.০০ মিটার গার্ডার ব্রিজ। হরিণাহাটি ডিবি-হরিণাহাটি জিপিএস সড়কে ১০ মিটার চেইনেজে ৫১.০০ মিটার আরসিসি গার্ডার ব্রিজ। সাদুল্যাপুর ইউপিসি হতে চলবল বাজার সড়ক ( চোইনেজে ৮০০-৬৩৪০ মিটার)। নাগরা আরএইচডি-বান্ধাবাড়ী-রামশীল-শশীকর জিসি সড়ক চেইনেজে ৫২০০-১৪৪০৫ মিটার প্রশস্ত ও শক্তিশালী করণ। নাগরা বাজার-রামশীল ইউপি সড়ক চেইনেজে ৩২০০-৫৯৯০ মিটার প্রশস্ত ও শক্তিশালী করণ। কদমবাড়ী-কালিগঞ্জ-গান্ধিয়াশুর জিসি সড়ক নির্মাণ চেইনেজে ০০-৬২৫৬ মিটার। কোটালীপাড়া সদর ভূমি অফিসের সামনে আর এ্যান্ড এইচ বিশারত বাড়ী পর্যন্ত সড়কে ০০ মিটার চেইনেজে ১৮.০০ মিটার আরসিসি গার্ডার ব্রিজ। কাগডাঙ্গা চেয়ারম্যান বাড়ী হতে কাটাভিটা ভায়া এমএ সাইদ স্কুল এ্যান্ড কলেজ সড়ক ( চেইনেজে ০০-১৩২০ মিটার) ইউনিব্লক দ্বারা উন্নয়ন। চাটখালি ব্রিজ-মহিষডাঙ্গা ভায়া ফুলবাড়ি জিপিএস সড়ক নির্মাণ (চেইনেজে ০০-৮১৬০ মিটার)। চিতশী জিপিএস কান্দিপাড়া ওয়াপদা বেড়িবাঁধ সড়ক নির্মাণ ( চোইনেজে ২৫০০-১১১০০ মিটার)। আশুতিয়া শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধা মোক্তার হোসেন দাড়িয়া মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি জাদুঘর। শুয়াগ্রাম ইউনিয়ন কৃষক সেবাকেন্দ্র। কেটালীপাড়া উপজেলা হেডকোয়ার্টার হতে ধারবাসাইল কান্দি সড়ক নির্মাণ ( ০০-১১৩৪৪ মিটার) ।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের প্রকল্পগুলো হচ্ছে- কোটালীপাড়া উপজেলার আটাশীবাড়ী, তালপুকুরিয়া ও ধারাবাশাইল এবং টুঙ্গিপাড়া উপজেলার পাটগাতী ও রামচন্দ্রপুর গ্রামে আধুনিক যান্ত্রীক কৃষির সমলয় চাষাবাদ পদ্ধতি প্রকল্প।

শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রকল্পের মধ্যে রয়েছে- কোটালীপাড়া উপজেলার শুয়াগ্রাম বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের নব নির্মিত ৪তলা বিশিষ্ট আধুনিক একাডেমিক ভবন। শেখ হাসিনা আদর্শ মহাবিদ্যালয়ের ১০০ আসনের নব নির্মিত ছাত্রী হোস্টেল ও কোটালীপাড়া এসএস ইনস্টিটিউশনের নব নির্মিত ৪তলা বিশিষ্ট একাডেমিক ভবন।

সর্বশেষ নিউজ