১২ এপ্রিল ২০২৪, শুক্রবার

ভোক্তা অধিকারে অভিযোগ করা যাবে ‘অ্যাপে’

নিজস্ব প্রতিবেদক

ভোক্তারা যাতে ঘরে বসেই অ্যাপের মাধ্যমে বাজার সংক্রান্ত যে কোনো অসঙ্গতি নিয়ে অভিযোগ করতে পারেন সে লক্ষ্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর নতুন একটি অ্যাপ চালু করছে।
মঙ্গলবার (১৪ মার্চ) জাতীয় ভোক্তা অধিকার দিবস উপলক্ষে কাওরান বাজার টিসিবি ভবনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়র জেষ্ঠ্য সচিব তপন কান্তি ঘোষ এ কথা জানান।
তিনি বলেন, ভোক্তা অধিকার দিবস উপলক্ষে বুধবার (১৫ মার্চ) কনজুমার কমপ্লেইন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (সিসিএমএস) নামে একটা অ্যাপ পাইলটিং পর্যায়ে উদ্বোধন করা হবে।
এছাড়া ভোক্তা অধিকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আগে মামলা করলে ও তা আমলযোগ্য হলে ভোক্তাকে স্বশরীরে উপস্থিত থাকতে হতো। মামলা জিতলে জরিমানার ২৫ শতাংশ অর্থও উপস্থিত থেকে নিতে হতো। এখন অ্যাপের মাধ্যমে অভিযোগ করে অভিযোগ প্রমাণিত হলে ই-পেমেন্টের মাধ্যমে ভোক্তা তার পাওনা টাকা পেয়ে যাবেন।
এ বছর ভোক্তা অধিকারের প্রতিপাদ্য হচ্ছে ‘নিরাপদ জ্বালানি, ভোক্তাবান্ধব পৃথিবী’। এ বিষয়ে তপন কান্তি বলেন, ‘জলবায়ু প্রসঙ্গে আমাদের এখন থেকেই নবায়নযোগ্য জ্বালানি নিয়ে ভাবতে হবে। ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশের ৪০ ভাগ জ্বালানি নবায়নযোগ্য মাধ্যম থেকে আসবে।’
এদিকে বাজারে সব দোকানে পণ্য ক্রয়ের রশিদ দেয়ার বিষয়ে ভোক্তা অধিকার অধিদফতরের মহাপরিচালক এ. এইচ. এম. সফিকুজ্জামান বলেন, ‘একজন ক্রেতা বিক্রেতার থেকে রশিদ চাইলে বিক্রেতা রশিদ দিতে বাধ্য। না দিলে তা অপরাধ বলে গণ্য হবে। তবে অনেকক্ষেত্রে দেখা যায়, ক্রেতাই রশিদ নিতে আগ্রহ দেখান না।’
স্বপ্রণোদিত হয়ে বিক্রেতা যাতে রশিদ দেন এ বিষয়ে ভোক্তা অধিকার কাজ করছে বলে জানিয়েছেন তিনি।
ভোক্তা অধিকারের দেয়া তথ্য অনুসারে, ২০০৯-১০ অর্থবছর থেকে চলতি অর্থবছরের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ভোক্তা অধিকার মোট ৬২ হাজার ৯টি বাজার অভিযান পরিচালনা করেছে। যার মধ্যে দন্ডিত প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ১ লাখ ৪৬ হাজার ৬৬০টি। এসব প্রতিষ্ঠান থেকে ১০২ কোটি ৯৫ লাখ ৭৫ হাজার ৭৪২ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে।
এছাড়া এখন পর্যন্ত ভোক্তা অধিদফতরে লিখিত অভিযোগ এসেছে ৮৮ হাজার ৯১৮টি। এর মধ্যে নিষ্পত্তি হয়েছে ৮৩ হাজার ৭৯৮টি। ভোক্তাদের অভিযোগের ভিত্তিতে ৮ হাজার ৩২৮টি প্রতিষ্ঠানকে ৫ কোটি ৮৫ লাখ ৮ হাজার ৮০৮ টাকা জরিমানা করা হয়েছে, যেখান থেকে ২৫ শতাংশ হিসেবে ৮ হাজার ১৯৭ জন ভোক্তা পেয়ছেন ১ কোটি ৪৩ লাখ ৬৫ হাজার ৫৭৭ টাকা।

সর্বশেষ নিউজ