২০ জুলাই ২০২৪, শনিবার

এস কে সিনহার আমেরিকার বাড়ি ক্রোকের আদেশ দিলো ঢাকার আদালত

নিজস্ব প্রতিবেদক
spot_img

 

২৮০,০০০ ডলার দিয়ে ২০১৮ সালের ১২জুন এস. কে সিনহা তার ছোট ভাই অনন্ত কুমার সিনহার নামে আমেরিকার  প্যাটারসন এলাকায়  তিনতলা বিশিষ্ট একটি বাড়ি ক্র‍য় করেন।

বাড়ি  ক্রয়ের অর্থ ইন্দোনেশিয়া এবং কানাডায় রয় এ গ্রুপের কাছ থেকে প্রাপ্ত, যা প্রকৃতপক্ষে একটি অস্তিত্বহীন/সেল কোম্পানী।অনন্ত কুমার সিনহা তার বড় ভাই সুরেন্দ্র কুমার সিনহাকে নিয়ে  ১৫৭,০৯০ ডলারের ক্যাশিয়ার চেক সংগ্রহের জন্য  আমেরিকার ভ্যালি ন্যাশনাল ব্যাংকে আসেন এবং এস.কে সিনহা উক্ত ব্যাংক কর্তৃপক্ষকে লিখিতভাবে জানান,আমেরিকার প্যাটারসন এলাকায় বাড়ি ক্রয়ের জন্য বন্ধুর কাছ থেকে তিনি ফান্ড পেয়েছেন।

তবে প্রকৃতচিত্র হলো, সুরেন্দ্র কুমার সিনহা বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি থাকাকালে বিভিন্ন ভাবে অবৈধ টাকা অর্জন করে তা হুন্ডিসহ বিভিন্ন কায়দায় আমেরিকায় পাচার করেন এবং তা তিনি  তার ছোট ভাইয়ের একাউন্টে ট্রান্সফার করেন।

আর এই টাকা  থেকেই ২৮০,০০০ ক্যাশ ডলার দিয়ে ১২ জুন,২০১৮ সালে তিনি ১৭৯,জ্যাপার স্ট্রিট, প্যাটারসন নিউ জার্সি ০৭৫২২ তে তিনি একটি বাড়ি ক্রয় করেন যা মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইন,২০১২ এর ৪(২),৩ ধারা ও ১৯৪৭ সনের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

এর ফলশ্রুতিতে  উপপরিচালক মো:গুলশান আনোয়ার প্রধান এস.কে সিনহার বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করে।এছাড়া তদন্তকালে এস.কে সিনহার উক্ত বাড়ি ক্রোকসহ আমেরিকার ব্যাংক হিসাব ফ্রিজের জন্য আদালতে আবেদন করেন তিনি।এতে বিজ্ঞ  আদালত উক্ত বাড়িটি ক্রোকসহ ব্যাংক হিসাব ফ্রিজের আদেশ দেন।

বাড়িটি ক্রোক/ব্যাংক হিসাব ফ্রিজসহ বিভিন্ন আলামত সংগ্রহের জন্য তদন্তকারী কর্মকর্তা আমেরিকায় শ্রীঘ্রই এমএলএআর প্রেরণ করবেন।

এছাড়া,ইতোমধ্যে এস.কে সিনহা অসৎ উদ্দেশ্যে ক্ষমতার অপব্যবহার এবং অপরাধজনক বিশ্বাসভঙ্গ করে ফারমার্স ব্যাংক লি: গুলশান শাখা হতে ৪ কোটি টাকার ভূয়া ঋণ সৃষ্টি করেন এবং উক্ত অর্থ পে- অর্ডারের মাধ্যমে ব্যক্তিগত হিসাবে স্থানান্তর ও মানিলন্ডারিং করেন।এই কারণে ঢাকার বিশেষ আদালত- ৪ সুরেন্দ্র কুমার সিনহা’সহ ১১আসামীর বিরুদ্ধে ১১বছরের সাজা ও অর্থ দন্ড প্রদানের আদেশ দেন।

 

সর্বশেষ নিউজ